২৭ হাজার টাকা বেতনে নিয়োগ দেবে কৃষি মন্ত্রণালয়

আবেদনের শেষ সময়: ২২ এপ্রিল, ২০১৯

প্রতিষ্ঠান

কৃষি মন্ত্রণালয়

পদ

ভিডিও ক্যামেরামান

পদসংখ্যা

১টি

শিক্ষাগত যোগ্যতা অভিজ্ঞতা

  • কমপক্ষে স্নাতক (বিজ্ঞানে স্নাতক প্রাথীদের অগ্রাধিকার) ডিগ্রী থাকতে হবে
  • প্রতিষ্ঠিত কোনো প্রতিষ্ঠান/ ইনস্টিটিউট থেকে ভিডিওগ্রাফি সংক্রান্ত ডিপ্লোমা কোর্স সম্পন্ন হতে হবে
  • ভিডিও ক্যামেরামান হিসাবে কমপক্ষে ২ বছরের বাস্তব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে

বেতন

সর্বসাকুল্যে মাসিক ২৭,১০০/- টাকা

আবেদনের শেষ সময়

২২ এপ্রিল, ২০১৯  তারিখ বিকাল ৪:০০ টার মধ্যে

আবেদনের নিয়মসহ বিস্তারিত জানতে নিচের বিজ্ঞপ্তিটি দেখুন
সব সময় চাকরির খবরের আপডেট পেতে ক্লিক করুন এখানে।
ওয়াইএসআই বাংলা জবসে আজই আপলোড করুন আপনার সিভি। রেজিস্ট্রেশনের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কৃষি মন্ত্রণালয়

কৃষি মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের একটি কৃষিবিষয়ক মন্ত্রণালয় যা বাংলাদেশ সচিবালয়ের ৪ নম্বর ভবনের ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলায় অবস্থিত। মন্ত্রণালয়টি ৭টি উইংয়ের সমন্বয়ে গঠিত যা নীতি নির্ধারন, পরিকল্পনা প্রণয়ন, তদারকী ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্বসমূহ সম্পাদন করে থাকে। সরকারের কৃষি সম্পর্কিত বিভিন্ন নীতি ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অধিদপ্তর/দপ্তর/সংস্থা রয়েছে।

একজন মন্ত্রীর নেতৃত্বে একজন সচিব, দুই জন অতিরিক্ত সচিব, সাত জন যুগ্ম-সচিব, একজন যুগ্ম-প্রধান এবং কয়েকজন উপ-সচিব, উপ-প্রধান, সিনিয়র সহকারী সচিব, সিনিয়র সহকারী প্রধান, সহকারী সচিব, সহকারী প্রধান, কৃষি অর্থনীতিবিদ, গবেষণা কর্মকর্তা কর্মরত আছেন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বাংলাদেশে কৃষি বিষয়ক সেবা প্রদান কারী সর্ববৃহৎ সরকারি প্রতিষ্ঠান। এই অধিদপ্তরের দায়িত্ব হলো সকল শ্রেণির চাষিদেরকে তাদের চাহিদা ভিত্তিক ফলপ্রসূ ও কার্যকর সম্প্রসারণ সেবা প্রদান করা যাতে তারা তাদের সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহার করে স্হায়ী কৃষি ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে অবদান রাখতে পারে।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মূল কাজ কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি করা, মানব সম্পদ উন্নয়ন ও কৃষি বিষয়ক প্রযুক্তি হস্তান্তর কার্যক্রম পরিচালনা করা। ক্ষুদ্রসেচ কার্যক্রমে এক বৈপ্লবিক ভূমিকা পালনের লক্ষ্যে ১৯৬১ সালে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠিত হয়। বিংশ শতাব্দীর আশির দশকের মাঝামাঝি থেকে সরকার কৃষি উপকরণ পরিচালনা, সংগ্রহ ও সরবরাহ কার্যক্রম দ্রুততার সঙ্গে সংকুচিত করা শুরু করে। প্রথমে কীটনাশক, অব্যবহিত পরেই সার এবং বিএডিসি’র ক্ষুদ্রসেচের সকল কার্যক্রম প্রত্যাহার করা হয়। শুধুমাত্র বিএডিসিতে আশিংকভাবে বিশেষ ধরনের কতিপয় বীজ উৎপাদন ও সরবরাহ কার্যক্রম বহাল থাকে।

কৃষি মন্ত্রণালয় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের একটি গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়। এটি বাংলাদেশ সচিবালয়ের ৪ নম্বর ভবনের ৫ম ও ৬ষ্ট তলায় অবস্থিত। এ মন্ত্রণালয় ৭টি উইংয়ের সমন্বয়ে গঠিত যা নীতি নির্ধারন, পরিকল্পনা প্রণয়ন, তদারকী ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব সমূহ সম্পাদন করে থাকে। সরকারের কৃষি সম্পর্কিত বিভিন্ন নীতি ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য অধিদপ্তর/দপ্তর/সংস্থা রয়েছে।একজন মন্ত্রীর নেতৃত্বে একজন সচিব, দুই জন অতিরিক্ত সচিব, সাত জন যুগ্ম-সচিব, একজন যুগ্ম-প্রধান এবং কয়েকজন উপ-সচিব, উপ-প্রধান, সিনিয়র সহকারী সচিব, সিনিয়র সহকারী প্রধান, সহকারী সচিব, সহকারী প্রধান, কৃষি অর্থনীতিবিদ, গবেষণা কর্মকর্তা কর্মরত আছেন (সূত্রঃ কৃষি মন্ত্রণালয়ের অর্গানোগ্রাম)।

সূত্র: উইকিপিডিয়া।

Comments
Comments

Comments are closed.