ল্যাপটপ কেনার আগে যে বিষয়গুলো অবশ্যই মাথায় রাখবেন

১) সাধারণ মুভি দেখা, গান শোনা, ইন্টারনেট ব্রাউজ করা সহ ছোটখাট কাজের জন্য কম বাজেট ল্যাপটপ কেনাই যথেষ্ট।

২) অফিসিয়াল বা ব্যক্তিগত কাজে বেশিরভাগ সময় যদি বাইরে কাজ করেন, সেক্ষেত্রে বেশি ব্যাটারি ব্যাকআপ সম্পন্ন ল্যাপটপ কেনাই ভালো হবে। এক্ষেত্রে যখন ল্যাপটপ কিনবেন জিজ্ঞাসা করে নিবেন।

৩) সাধারণত সব ল্যাপটপের ব্যাটারি লিথিয়াম আয়নের হয়ে থাকে এবং যত বেশি সেল (৪-১২) থাকবে ব্যাটারির ব্যাকআপ সময় ততটাই বেশি হবে। বর্তমান ল্যাপটপগুলোর ব্যাটারির ব্যাকআপ সময় ৩-৮ ঘন্টা হয়ে থাকে। ল্যাপটপ কেনার আগে নিশ্চিত হয়ে নিন আপনার ক্রয়কৃত ল্যাপটপটি কতক্ষণ ব্যাকআপ দিবে।

৪) সাধারণত হাই রেজুলেশনের গেম খেলা, ভিডিও এডিটিং এর কাজে করা এবং গ্রাফিক্সের কাজের জন্য উচ্চ গতিসম্পন্ন একটু হাই-কনফিগারেশনের ল্যাপটপ কেনা জরুরি। এজন্য প্রসেসর ক্লক স্পিড 3.0 GHz বা এর বেশি হলে ভালো এবং কোন সিরিজের (Core i3, Core i5, Core i7 series) এসব জেনে নেওয়া জরুরি। কেনার আগে অবশ্যই গ্রাফিক্স সক্ষমতা কেমন দেখে নেবেন।

৫) এছাড়া কেনার সময় ল্যাপটপটির হার্ডডিস্ক, র‍্যাম কতটুকু আছে তা দেখবেন। হাই রেজুলেশনের গেম খেলা, ভিডিও এডিটিং এর কাজ করা এবং গ্রাফিক্সের কাজের জন্য কমপক্ষে 4GB DDR3 র‍্যাম হলে ভালো হবে। আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হচ্ছে, ল্যাপটপটিতে যে গ্রাফিক্স মেমোরি থাকবে সেটা শেয়ার্ড মেমোরি না ডেডিকেটেড মেমোরি এটা খেয়াল করবেন।

 

৬) ল্যাপটপের অন্যতম একটি দিক একে সহজে বহন করা যায়। এজন্য যে ল্যাপটপটি আপনি কিনেছেন তার ওজন কেমন তা দেখে নিবেন। সাধারণত বর্তমান বাজারে যে ল্যাপটপগুলো পাওয়া যাচ্ছে এগুলোর ওজন প্রায় ২ কেজি বা এর বেশি। এরপরও যদি আরো হালকা ল্যাপটপ পছন্দ করেন এবং বাজেট ভালো থাকলে ম্যাকবুক নিতে পারেন অথবা স্বল্প বাজেটের মধ্য নেটবুক, নোটবুক নিতে পারেন।

৭) ল্যাপটপ কেনার সময় দেখে নিন, যে ব্রান্ডের পণ্যটি কিনছেন সেটার ওয়ারেন্টি কত মাসের/বছরের। এছাড়া ইউএসবি ৩.০ পোর্ট  চলে এসেছে। অনেকগুলো ইউএসবি পোর্টের দুটো ভার্সনই (২.০ এবং ৩.০) সমর্থন করে থাকে।

৮) এছাড়া কেনার সময় অবশ্যই ওয়ারেন্টি কার্ড, চার্জার, ব্যাগ ইত্যাদি আনুষাঙ্গিক জিনিসপত্র, যা আপনার ল্যাপটপের সঙ্গেই পাচ্ছেন তা বুঝে নিন। এছাড়া সবসময় অনুমোদিত ডিলার, আমদানকারক, বিশ্বস্ত মাধ্যম বা ব্যক্তির কাছ থেকে ল্যাপটপ কিনুন।

৯) পুরনো ল্যাপটপ কেনা থেকে বিরত থাকার চেষ্টা করুন। এরপরও কিনলে তা ভালোভাবে যাচাই করুন এবং দেখে-শুনে পরিচিত কারো কাছ থেকে বুঝে নিন। এছাড়া কেনার আগে কম্পিউটার সংশ্লিষ্ট কোনো অভিজ্ঞ বন্ধু বা আত্নীয়স্বজনের সহযোগীতা নিতে পারেন। আর আপনার বাজেটের সাথে মিল রেখে কেমন ল্যাপটপ পেতে পারেন এজন্য ২-১ দিন আগে থেকেই মার্কেট যাচাই-বাছাই করে দেখুন। অল্প কিছু ব্যবধান হলে নতুন ল্যাপটপ কেনাই উত্তম।

Comments
Comments

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.