সহজ যে কাজগুলো আরও দক্ষ করে তুলবে আপনাকে

১. ভোরে উঠে দু’গ্লাস পানি পান করুন

আমরা যখন ঘুমাই তখন অনেক সময়ের জন্য পানি পান করি না। এতে আমাদের শরীরে পানির ঘাটতি তৈরি হয়। সকালে ওঠার পর দু’গ্লাস পানি পান করলে সেটা শরীরের আর্দ্রতা রক্ষা করবে এবং শরীর থেকে দূষিত পদার্থ বের করে দেবে। ক্ষতিকর পদার্থ বেরিয়ে পড়ায় আমাদের ব্রেনের কাজ আরও দ্রুত হবে।

২. নাস্তা করার সময় কোনো একটি বইয়ের সারমর্ম পড়ুন

সকালে নাস্তা খেতে খেতে কোনো ভালো বইয়ের সারমর্ম পড়ুন। এটা খাওয়ার সময় পত্রিকা পড়ার চেয়ে ভালো। আপনার জীবনে আরও ভালো কিছুর ছাপ ফেলবে। বুদ্ধিমত্তার উপরও প্রভাব পড়বে।

৩. যাত্রাপথে নিয়মিত উদ্দীপনাময় অডিও গল্প শুনুন

আপনার কর্মেক্ষেত্রে যেতে যদি ১০ মিনিটও লাগে, তবে কোনো গোয়েন্দা কিংবা অ্যাডভেঞ্চার কাহিনীর অডিও ভার্সন শুনতে পারেন। এগুলো আপনি ইন্টারনেটে খুঁজলেই সংগ্রহ করতে পারেন।

৪. কর্মক্ষেত্রে সবুজ চা পান করুন

আপনি ক্যাফেইন পান করে শরীরকে তাজা রাখার চেয়ে সবুজ চা পান করুন। এতে রয়েছে থিয়েনাইন, যা ব্রেনে আলফা ওয়েভ সৃষ্টি করে ব্রেনকে সচল রাখে। এবং এটি স্বাস্থ্যকরও বটে।

৫. দিনের বেলা কাজের ফাঁকে একটু ঘুমিয়ে নিন

সারাদিনের কাজের ফাঁকে, বিশেষ করে দুপুরবেলা, একটু ঘুমিয়ে নিন। এটা শরীর ও মন দুটোর জন্যই ভালো।আমাদের নিজস্ব একটি দৈহিক ছন্দ রয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, যারা দুপুরে একটু ঘুমিয়ে নেন তারা অন্যদের তুলনায় কাজে বেশি মনোযোগী হতে পারে এবং ছাত্রদের বেলায়ও একই বিষয় ঘটে।

৬. কাজের সময় চিনি জাতীয় কিছু খাবেন না

যখন আপনাকে খুব মনোযোগ দিয়ে কোনো কাজ করতে হয়, তখন চিনি সরাসরি এড়িয়ে চলুন। এটা আপনার ব্রেনের গতি কমিয়ে দিবে এবং মনোযোগের ব্যাঘাত ঘটাবে। এর বদলে আপনি ডিমের কুসুম কিংবা মাছ খেতে পারেন।

৭. দিনের বেলা সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে অল্প সময় দিন

আমরা যে জিনিসটার দিকে তাকিয়ে থাকি ব্রেন সেটাতেই বেশি মনোযোগ দেয়। তবে যখন আপনি স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থেকে স্ক্রল ঘুরাতে থাকেন, সেটা মনোযোগের তেমন ভালো মাধ্যম হয় না। সেটা বরং অবসর সময়েই করুন।

৮. মুভি কিংবা সিরিয়াল দেখার বদলে গেম খেলুন

মুভি কিংবা সিরিয়াল না দেখে বরং গেম খেলুন। এটা ব্রেনের গতির সুব্যাবহার করবে। মুভি কিংবা সিরিয়াল দেখা একটি পরোক্ষ কাজ।

৯. টিভি দেখার পরিবর্তে বই পড়ুন

একইভাবে টিভি দেখার চেয়ে বই পড়ুন। বই পড়া আপনার ব্রেনের গতিকে সচল রাখবে। বই পড়ার সময় ব্রেন ছবি তৈরি করে। টিভিতে ছবি তৈরিই থাকে। সেগুলো ব্রেন তেমন প্রক্রিয়াজাত করে না।

১০. কিছু কম্পিউটার প্রোগ্রাম তৈরি করুন

প্রোগ্রামিং হলো প্যাটার্ন ও যুক্তিসংগতভাবে শেখার ভালো একটি মাধ্যম। অবসর সময়ে কোডিং নিয়ে একটু-আধটু কাজ করা পেশাগত জীবনে কাজে দেবে এবং কাজে মনোযোগ  তৈরি করবে।

১১. দিনের শুরুতে কিছু সহজ ব্যায়াম করুন

শরীরের সাথে মনের সংযোগ রয়েছে। শরীর খারাপ হলে মনও খারাপ হবে। তাই শরীরকে ফিট রাখতে নিয়মিত কিছু ব্যায়াম করুন। দৌড়ানো কিংবা কোনো উঁচু জায়গায় আরোহণ করলে ভালো কাজে দেবে। তাছাড়া অন্যান্য ভালো কিছু ব্যায়াম করুন।

১২. আপনার চেয়ে দক্ষ কারো সাথে কিছুটা সময় ব্যায় করুন

আমরা যাদের সাথে মিশি, তাদের আচরণের প্রভাব আমাদের উপরও পড়ে। তাই ভালো ও দক্ষ মানুষদের সাথে মেলামেশা করুন। আপনার সামাজিকতা এবং দক্ষতা বাড়বে।

১৩. আপনার সাথে একমত হতে পারে না এমন কিছু মানুষকে সময় দিন

যাদের সাথে আপনার মতের মিল হয় না, তাদের সাথে বন্ধুত্বসুলভ আচরণের চেষ্টা করুন। আপনার যুক্তিগত দক্ষতা বাড়বে এবং মানুষকে আপনার সাপেক্ষে ভালো বুঝতে পারবেন।

১৪. প্রকৃতির সান্নিধ্য থেকে ঘুরে আসুন

প্রকৃতির সাথে মেশার চেষ্টা করুন। প্রকৃতি থেকে গৃহীত খাঁটি অক্সিজেন আপনার শরীর ও মনকে ভালো রাখবে।প্রকৃতির সৌন্দর্য কাজ করার মানসিকতা বাড়াবে।

১৫. সবসময় একটি নোটবুক সাথে রাখুন

সবসময় সাথে একটা নোটপ্যাড রাখুন। আপনার মনের তাৎক্ষণিক চিন্তা কিংবা নতুন কোনো আইডিয়া লিখে রাখতে পারবেন। এ অভ্যাস আপনাকে যুক্তিগতভাবে ভাবতে উৎসাহিত করবে।

১৬. দিনশেষে আগামী দিনের পরিকল্পনা নিয়ে কিছু সময় ব্যায় করুন

প্রতিদিন ঘুমানোর আগে পরবর্তী দিনের কর্মপরিকল্পনা সাজিয়ে নিন। এটা আপনার কাজকে সহজ করে দেবে এবং দূরদর্শিতা বাড়াবে। আপনি আরও বেশি কাজ করতে পারবেন।

Comments
Comments

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.