ফুল ফান্ডে অস্ট্রেলিয়া পড়াশুনার সুযোগ ( অস্ট্রেলিয়া স্কলারশীপ ২০২১)

অস্ট্রেলিয়া অ্যাওয়ার্ড স্কলারশিপের (Australia Awards Scholarship) আওতায় অস্ট্রেলিয়ায় মাস্টার্স পড়ার জন্য ২০২১ সেশনের জন্য বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদেরকে স্কলারশীপ দেয়া হবে। পারস্পরিক সহযোগিতা ও সম্প্রীতি বৃদ্ধির লক্ষ্যে অস্ট্রেলিয়া সরকার সম্পূর্ণ মেধার ভিত্তিতে এ স্কলারশীপ দিবে। নির্বাচিত শিক্ষার্থী দেশটির সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ে মাস্টার্স কোর্স পড়তে পারবে। রাউন্ড-ট্রিপ এয়ার টিকেট, টিউশন ফি, আবাসন ভাতাসহ শিক্ষার্থীর যাবতীয় খরচ কর্তৃপক্ষ বহন করবে। আবেদন করা যাবে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত।

​উল্লেখ্য শুধু বিসিএস কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ব্যাংক, জুডিশিয়াল সার্ভিসের কর্মকর্তা, এনজিও, প্রাইভেট সেক্টরে কর্মরত, ব্রাক এবং আইসিসিডিআর বি এর মত গবেষণা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা এই স্কলারশিপের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এছাড়া একাডেমিয়া, মিডিয়া, কালচারাল ইন্সটিটিউশন এবং এন্ট্রাপ্রেনিউর বা উদ্যোক্তাদেরো আবেদন করতে উৎসাহিত করা হয়েছে। সিলেকটেড আবেদনকারীদের মধ্যে অন্তত ৫০% নারী আবেদনকারী রাখা হবে।

স্থান:

অস্ট্রেলিয়া

 সুযোগ সুবিধাসমূহ

  • রাউন্ড ট্রিপ এয়ার-টিকেট
  • পৌছানোর পর এস্টাব্লিশমেন্ট ভাতা
  • লিভিং এক্সপেন্সেস
  • সকল টিউশন ফি
  • অভ্যন্তরীণ যাতায়াত ভাতা
  • স্বাস্থ্য ভাতা

এ ছাড়া নাগরিক জীবনে সাধারণত প্রয়োজনীয় সকল সুবিধা এ স্কলারশীপের অন্তর্ভুক্ত।

 আবেদনের যোগ্যতা

  • আগ্রহী শিক্ষার্থীর মাস্টার্স কোর্সে আবেদন করার জন্য সাধারণত প্রয়োজনীয় সকল যোগ্যতা থাকতে হবে।
  • তৃতীয় বিভাগ ফলাফল গ্রহণযোগ্য হবে না।
  • জানুয়ারী ২০২০ তে আবেদনকারী প্রার্থীর বয়স কমপক্ষে ১৮ বছর পূর্ণ হতে হবে।
  • বাংলাদেশের স্থায়ী নাগরিক হতে হবে।
  • অস্ট্রেলিয়া বা নিউজিল্যান্ডের নাগরিকের সাথে বিবাহ/এনগেজড হওয়া যাবে না।
  • সেনা কর্মকর্তা আবেদন করতে পারবে না।
  • অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক অথবা অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসের জন্য ভিসা আবেদন করেছে এমন কেউ আবেদন করতে পারবে না।
  • সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে  ন্যূনতম ২ বছর কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।
  • আবেদনকারীকে আবেদনের সাথে “ডেভেলপমেন্ট ইমপ্যাক্ট প্ল্যান ” সাবমিট করতে হবে

ভাষাগত যোগ্যতা:
আগ্রহী শিক্ষার্থীকে আইএলটিএস অথবা টোফেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। আইএলটিএস এর ক্ষেত্রে ন্যুনতম ৬.৫ স্কোর অর্জন করতে হবে। টোফেল-এ পেপার বেজ্ড পরীক্ষায় ন্যুনতম ৫৮০ ও কম্পিউটার বেজ্ড পরীক্ষায় ন্যুনতম ২৩৭ স্কোর অর্জন করতে হবে। তবে নারী, ফিজিক্যালি চ্যালেঞ্জড এবং ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী সম্প্রদায়ের আবেদনকারীদের ক্ষেত্রে স্কোর ৬.০ হলেই হবে।

যেসকল স্থানের প্রার্থীদের জন্য প্রযোজ্য: বাংলাদেশ সহ উন্নয়নশীল দেশের নাগরিকদের জন্য উন্মুক্ত

 

 আবেদন পদ্ধতি

আগ্রহী শিক্ষার্থীকে প্রথমে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন যাচাই-বাছাই করার পর প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত সীমিত সংখ্যক শিক্ষার্থীকে ইন্টারভিউয়ের জন্য ডাকা হবে। মৌখিক ও লিখিত পরীক্ষার পর চুড়ান্তভাবে নির্বাচন করা হবে।

আবেদনের শেষ তারিখ: এপ্রিল ৩০, ২০২০

আবেদনে সহযোগীতার জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে ক্লিক করুন এখানে

Comments
Comments

Comments are closed.