ল্যাবরেটরি অ্যাটেনডেন্ট পদে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে নিয়োগ

আবেদনের শেষ সময়: ৩১ অক্টোবর, ২০১৮

প্রতিষ্ঠান

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

পদ

ল্যাবরেটরি অ্যাটেনডেন্ট

পদসংখ্যা

১০টি

শিক্ষাগত যোগ্যতা

মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট বা সমমান

বয়সসীমা

১৮-৩০ বছর, মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে ৩২ বছর

বেতন

৮,৫০০-২০,৫৭০ টাকা

আবেদনের শেষ সময়

৩১ অক্টোবর, ২০১৮ তারিখ বিকাল ০৪:০০ টার মধ্যে।

আবেদনের নিয়ম

আবেদন করতে হবে অনলাইনে। http://dghsp.teletalk.com.bd ওয়েবসাইটের মাধমে অনলাইনে আবেদনপত্র পাঠাতে হবে। অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ ও পরীক্ষার ফি জমা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হয়েছে ৮ অক্টোবর থেকে। আবেদন জমা দেওয়ার শেষ সময় ৩১ অক্টোবর বিকেল ৪টা। অনলাইনে আবেদন জমা দেওয়ার সময় থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে পরীক্ষার ফি জমা দিতে হবে। আবেদনপত্রের যথাস্থানে ৩০০ বাই ৩০০ পিক্সেলের ছবি এবং ৩০০ বাই ৮০ পিক্সেলের স্বাক্ষর স্ক্যান করে আপলোড করতে হবে। অনলাইনে জমা দেওয়া আবেদনের একটি কপি প্রিন্ট ও ডাউনলোড করে সংরক্ষণ করে করতে হবে। আবেদন সাবমিট করার পর ইউজার আইডি ব্যবহার করে টেলিটক প্রিপেইড মোবাইলে এসএমএসের মাধ্যমে ল্যাবরেটরি অ্যাটেনডেন্ট পদের জন্য ৫৬ টাকা আবেদন ফি পরিশোধ করতে হবে।

বিস্তারিত জানতে নিচের বিজ্ঞপ্তিটি দেখুন

যা যা লাগবে
ওয়েবসাইটে http://www.dghs.gov.bd জানা যাবে প্রবেশপত্র প্রাপ্তির দরকারি সব তথ্য। এ ছাড়া প্রার্থীর দেওয়া মোবাইল নম্বরে এসএমএসেও জানানো হবে। এসএমএসে প্রেরিত ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে পরবর্তী সময়ে রোল নম্বর, পদের নাম, ছবি, পরীক্ষার তারিখ, সময় ও পরীক্ষাকেন্দ্রের তথ্যসহ প্রবেশপত্র ডাউনলোড দিয়ে রঙিন প্রিন্ট করে নেওয়া যাবে। প্রবেশপত্রটি লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় সঙ্গে রাখতে হবে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষায় বসার আগে জমা দিতে হবে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র। সব শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্রের কপি, নাগরিকত্ব সনদ, চারিত্রিক সনদ, মুক্তিযোদ্ধা কোটার ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা সনদ, প্রতিবন্ধী কোটার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধী সনদ প্রথম শ্রেণির গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত করে জমা দিতে হবে। মৌখিক পরীক্ষার দিন সব সনদের মূল কপি সঙ্গে রাখতে হবে।

পরীক্ষা পদ্ধতি
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের প্রশাসন বিভাগ সূত্রে ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের নিয়োগবিধি অনুসারে জানা যায়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির নিয়োগ পরীক্ষায় মোট ১০০ নম্বরের পরীক্ষা নেওয়া হয়। এর মধ্যে ৮০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা এবং ২০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষা নেওয়া হতে পারে। এমসিকিউ পদ্ধতিতে লিখিত পরীক্ষা হয়ে থাকে। পদ অনুসারে করা হয় প্রশ্নপত্র। লিখিত পরীক্ষায় সাধারণ জ্ঞান, বাংলা, ইংরেজি ও গণিত বিষয়ে প্রশ্ন করা হয়। প্রতিটি বিষয়ে বরাদ্দ থাকে ২০ নম্বর। প্রতিটি প্রশ্নের মান থাকে ১ নম্বর। টেকনিক্যাল পদের জন্য বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রশ্ন থাকে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ডাকা হবে মৌখিক পরীক্ষার জন্য।

সব সময় সকল ধরনের চাকুরির খবর জানতে ক্লিক করুন এখানে

Comments
Comments

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.