আবারো ১২৭ জনের বিশাল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তার কার্যালয়

আবেদনের শেষ সময়: ২৮ আগস্ট, ২০১৯

প্রতিষ্ঠান

প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তার কার্যালয়
প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়

পদ-পদসংখ্যা-বেতন

  • নিরাপত্তা উপ-পরিদর্শক (এসএসআই) – ০২ জন – ১১,৩০০/- থেকে ২৭,৩০০/- টাকা
  • সহকারী – ০১ জন – ১১,০০০/- থেকে ২৬,৫৯০/- টাকা
  • সাঁটলিপিকার-কাম-কম্পিউটার অপারেটর – ০৫ জন – ১১,০০০/- থেকে ২৬,৫৯০/- টাকা
  • উচ্চমান করণিক – ০৫ জন – ১০,২০০/- থেকে ২৪,৬৮০/- টাকা
  • সাঁটমুদ্রাক্ষরিক-কাম-কম্পিউটার অপারেটর – ০১ জন – ১০,২০০/- থেকে ২৪,৬৮০/- টাকা
  • অফিস করণিক – ৪৭ জন – ৯,৩০০/- থেকে ২২,৪৯০/- টাকা
  • নিরাপত্তা তত্ত্বাবধায়ক (এসএস) – ০৫ জন – ৯,৩০০/- থেকে ২২,৪৯০/- টাকা
  • ড্রাইভার [গ্রেড-১৫] – ০২ জন – ৯,৭০০/- থেকে ২৩,৪৯০/- টাকা
  • ড্রাইভার [গ্রেড-১৬] – ০১ জন – ৯,৩০০/- থেকে ২২,৪৯০/- টাকা
  • প্লাম্বার – ০১ জন – ৯,৩০০/- থেকে ২২,৪৯০/- টাকা
  • অফিস সহায়ক – ৩৯ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা
  • বাবুর্চি – ০৬ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা
  • মেসওয়েটার – ০২ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা
  • মালী – ০২ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা
  • নিরাপত্তা প্রহরী – ০১ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা
  • পরিচ্ছন্নতা কর্মী – ০৭ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা

আবেদনের শেষ সময় 

২৮ আগস্ট, ২০১৯

আবেদনের নিয়মসহ বিস্তারিত জানতে নিচের বিজ্ঞপ্তিটি দেখুন
সব সময় চাকরির খবরের আপডেট পেতে ক্লিক করুন এখানে।
ওয়াইএসআই বাংলা জবসে আজই আপলোড করুন আপনার সিভি। রেজিস্ট্রেশনের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় (বাংলাদেশ)

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় (বাংলাদেশ) সামরিক নীতি প্রণয়ন এবং কার্যকর করার প্রধান প্রশাসনিক প্রতিষ্ঠান। এই মন্ত্রণালয়টি একজন মন্ত্রীর নেতৃত্বে পরিচালিত হয়। সাধারনত বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সশস্ত্র বাহিনী, আন্তঃবাহিনী দপ্তর এবং প্রতিরক্ষা সহায়ক অন্যান্য দপ্তর ও সংস্থার সমন্বয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব সমুন্নত রাখাই প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রধান দায়িত্ব। বাংলাদেশ স্বাধীনতা অর্জনের পর পরই ১৯৭১ খ্রিষ্টাব্দে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় গঠন করা হয়। প্রথম প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ছিলেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান। বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা। বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা। বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীকে বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় একটি সক্ষম ও উপযুক্ত বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলা। অন্যান্য রাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সঙ্গে সমমর্যাদার ভিত্তিতে সুসম্পর্ক বজায় রাখা। শান্তিপূর্ণ বিশ্ব গড়ে তোলার লক্ষে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনসমুহে অংশগ্রহনের মাধ্যমে বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠায় অবদান রাখা ।

নিম্নে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ও দপ্তরসমূহের তালিকা দেওয়া হল, নিম্নে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন সংস্থা ও দপ্তরসমূহের তালিকা দেওয়া হলঃ বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, বাংলাদেশ নৌবাহিনী, বাংলাদেশ বিমান বাহিনী।

আন্তঃবাহিনী সংস্থাসমূহঃ সামরিক চিকিৎসা সার্ভিস মহাপরিদপ্তর (ডিজিএমএস), জাতীয় প্রতিরক্ষা কলেজ (এনডিসি), ডিফেন্স সার্ভিসেস কম্যান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজ (ডিএসসিএসসি), মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স এ্যান্ড টেকনোলজি (এমআইএসটি), বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি), আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল কলেজ (এএফএমসি), আর্মড ফোর্সেস মেডিকেল ইন্সটিটিউট (এএফএমআই), আর্মড ফোর্সেস ইন্সটিটিউট অব প্যাথলজি এন্ড ট্রান্সফিউশন (এএফআইপি), বাংলাদেশ সমরাস্ত্র কারখানা (বিওএফ), আন্তঃবাহিনী নির্বাচন পর্ষদ (আইএসএসবি), বাংলাদেশ সশস্ত্রবাহিনী বোর্ড (বিএএসবি), প্রতিরক্ষা ক্রয় মহাপরিদপ্তর (ডিজিডিপি), প্রতিরক্ষা গোয়েন্দা মহাপরিদপ্তর (ডিজিএফআই), আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর), ক্যাডেট কলেজ পরিচালনা পরিষদ।

অন্যান্য সংস্থা/দপ্তরঃ বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর (বিএনসিসি), বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর (বিএমডি), মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র (স্পারসো), বাংলাদেশ জরিপ অধিদপ্তর (এসওবি), সামরিক ভূমি ও সেনানিবাস অধিদপ্তর (সাভূসে), গুপ্তসংকেত পরিদপ্তর (সাইফার), কন্ট্রোলার জেনারেল ডিফেন্স ফাইন্যান্স (সিজিডিএফ), কন্ট্রোলার জেনারেল ডিফেন্স ফাইন্যান্স (সিজিডিএফ), প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তার কার্যালয় (সিএও), মিনিস্ট্রি অব ডিফেন্স কনস্ট্যাবিউলারি (এমওডিসি)।

সুত্রঃ উইকিপিডিয়া।

Comments
Comments

Comments are closed.