দ্রুত ও কার্যকর উপায়ে কাজ করবেন যেভাবে

আমাদের সবার জীবনে অনেক সময় আমাদেরকে সীমিত সময়ের মধ্যে অনেকগুলো কাজ করতে হয়। আপনি দ্রুত এবং দক্ষতা সহকারে কাজ করতে চান? যখন কাজের তালিকা অনেক বড় হয়, তখন তা দ্রুত করা অনেকটাই কঠিন হয়ে পড়ে।

মাল্টি টাস্কিং এড়িয়ে চলুন

অল্প সংখ্যক মানুষ মাল্টি টাস্কিংয়ে দক্ষ। কিন্তু অধিকাংশ লোক মাল্টি টাস্কিং করতে গিয়ে কাজে দক্ষতা হারিয়ে ফেলে। একসাথে দুটি কাজ করলে ভুল করার সম্ভাবনা বেশি থাকে। এক কাজের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ এবং সম্পূর্ণরূপে সময় দিলে ভালো মানের কাজ উত্পাদন সম্ভব।

পরিহার্য প্রযুক্তি বন্ধ করুন

আজকাল প্রযুক্তি অধিকাংশ লোকের কাজের বিশাল অংশ জুড়ে আছে। এটি আপনার কাজের গতিকে ধীর করতে পারে। আপনি দিনের কোন অংশে বেশি কাজ করতে সতেজ বোধ করেন? নিশ্চয়ই আপনার উত্তর হবে সকালবেলা কিংবা দুপুরের আগে। ঠিক সেই সময়ে আপনি আপনার ফোন ও ইমেইল চেক করা বন্ধ রাখুন। অন্তত দু’ঘন্টা বন্ধ রেখে কেবল কাজে মনোযোগ দিন। দেখবেন আপনার কাজ খুব দ্রুত এগোচ্ছে।

কাজ করার সময় দরজা বন্ধ রাখুন

বহু কোম্পানি দরজা খোলা রেখে কাজ করতে বলে। অন্তত কয়েক ঘন্টার জন্য আপনার দরজা বন্ধ রাখুন।দেখবেন আপনার কাজের অগ্রগতি বেড়ে যাবে।

ব্যক্তিগত কাঠামো তৈরি

বেশিরভাগ লোকের একটি কাঠামো আছে দ্রুত এবং দক্ষতা সহকারে কাজ করার প্রতি। মনে রাখবেন, সবাই একরকম নয়। আপনার বসের জন্য যে কাজটি ভাল মনে হয় তা আপনার কাছে ভাল না-ও লাগতে পারে। আপনি যে সময়ে সবচেয়ে দক্ষ কাজ করতে পারেন সেই সময়টিকে নির্দিষ্ট করুন আপনার কাজের জন্য। কল এবং ইমেলের সাড়া দেওয়ার সময়ও পরিকল্পনা করতে ভুলবেন না।

কাজ শেষ করার একটি সময় নির্ধারণ করুন

আপনি যদি চিন্তা করে থাকেন, আজ অফিস থেকে ৬টায় বের হয়ে যাবেন, তবে এই সময়ের আগেই আপনার কাজগুলো সমাধান করুন। যখন একটি নির্দিষ্ট সময়সীমা থাকে তখন আপনার কাজগুলো দ্রুত শেষ হয়।

পরিকল্পনামতো বিরতি নিন

সংক্ষিপ্ত বিরতি গ্রহণ করুন। একনাগাড়ে কাজ করলে তা আপনার কর্মক্ষমতা কমিয়ে ফেলে। এই বিরতির সময়টিকে কাজ লাগান। ফেসবুকে লগ ইন না করে বরং এক কাপ চা পান করুন। এর ফলে আপনি সতেজ অনুভূতি পাবেন।

অন্যদের তুলনায় বেশি গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো আলাদা করুন

কর্মক্ষেত্রে কাজগুলোকে গুরুত্ব অনুসারে আলাদা করুন। যে কাজগুলো অধিক গুরুত্বপূর্ণ সেগুলো আগে সমাধান করুন। যে কাজগুলো ১০ মিনিটে সমাধান করা যায় সেগুলোকে অধিক চমকপ্রদ করার জন্য কখনো আধা ঘন্টা কিংবা এর চেয়ে বেশি সময় দিবেন না। এটি মোটেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ কাজ নয়। গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপারগুলোর উপর নজর দিন।

ঘুমানোর সময়সীমা নির্দিষ্ট করুন

দ্রুত এবং দক্ষতা সহকারে কাজ করতে চাইলে ঘুমানোর সময়সূচী হিসেব করুন। ভালো ঘুম হলেই আপনি থাকবেন সতেজ, ফলে কাজে মনোযোগ বৃদ্ধি পাবে।

ডেস্ক পরিষ্কার ও ল্যাপটপ ঠিক রাখুন

কম গোলমাল থাকলে আপনি কাজ করতে পারবেন কম চাপে। আপনার চাপের মাত্রা প্রায়ই বেশি হয়ে যায়। তখন আপনার আশেপাশে যে জিনিসগুলো প্রয়োজন হয় তা পান না। সময় নষ্ট করতে না চাইলে সবসময় ডেস্কটপ এবং ডেস্ক পরিষ্কার রাখুন।

সবকিছু আছে কিনা তা নিশ্চিত করুন

কাজ শুরু করার আগে আপনার ফোনে এবং ল্যাপটপে চার্জ আছে কি না তা নিশ্চিত করুন। সকল সরঞ্জাম আছে কি না দেখে নিন ডেস্কে। একটি পেন্সিল অথবা ল্যাপটপ চার্জ করার জন্য কাজ ফেলে উঠলে পুনরায় কাজে মনোযোগ দিতে অনেক সময় লেগে যেতে পারে।

এই কাজগুলো করলে অফিসে চাপ কম হবে আপনার। আর দ্রুত ও দক্ষতার সাথে এগিয়ে যেতে পারবেন।

Comments