পড়াশোনা নোট করার ৫টি কার্যকর উপায়

নোট আমরা কে না নিয়ে থাকি? বিশেষ করে পড়াশোনা যারা করছেন, তাদের জন্য ক্লাস লেকচার থেকে শুরু করে যেকোনো শিক্ষণীয় বিষয় নোট করে নেওয়া একটি ইতিবাচক অভ্যাসের মধ্যে পড়ে। তবে সমস্যা হয় যখন অনেক বেশি নোট একসাথে খুব কম সময়ে করতে হয়, কিংবা নোট করার পরেও বিষয়টি বোঝা সম্ভব হয় না। এই অযাচিত সমস্যাগুলোর হাত থেকে বাঁচতে নোট করার সময় অনুসরণ করুন এই ব্যাপারগুলো আর কার্যকর করে তুলুন আপনার নোট নেয়াকে।

ক্লাসে নোট নেওয়া অত্যন্ত কার্যকর একটি পদ্ধতি; Source: Cengage Blog

নিজের ভাষায় নোট লিখুন

শিক্ষক যে ভাষায় বোঝাচ্ছেন, কিংবা আপনার বন্ধু যেমন নোট করেছেন; সেখান থেকে টুকে নেওয়ার সময় এবং নিজে নোট করার সময় কখনোই হুবহু সেই লেখা কপি করবেন না। কারণ, প্রত্যেকটি মানুষের বোঝার এবং ভাব প্রকাশ করার নিজস্ব ধরণ রয়েছে। এতে করে সময়টাও লাগে বেশি এবং পরবর্তী সময়ে কিছু না বুঝতে পারলে দ্বারস্থ হতে হয় অন্যকারো। তাই নিজের যেটা বুঝেছেন সেটাই নিজের ভাষায় নোটবুকে টুকে নিন।

সম্ভব হলে আগে থেকে প্রিন্ট করে নিন

অনেক সময় শিক্ষকেরা লেকচার দেওয়ার আগেই স্লাইড হিসেবে লেখা দিয়ে দেন ছাত্রছাত্রীদের। এক্ষেত্রে আপনি হয়ত ভাবতেই পারেন যে, ক্লাসেই তো স্লাইডগুলো পাওয়া যাবে। তাহলে আর প্রিন্ট করা কেন। কিন্তু বাস্তবে ক্লাসের আগে আপনি যদি শিক্ষকের লেকচার স্লাইড প্রিন্ট করে একবার চোখ বুলিয়ে নিতে পারেন, তাহলে ক্লাসে পড়ানো সবকিছু সহজেই বুঝতে পারা এবং নোট করা সহজ হয়ে যাবে। কারণ, এতে করে আপনার মস্তিষ্ক আগে থেকেই প্রস্তুত হয়ে থাকবে ব্যাপারটি নিয়ে।

কার্যকর পন্থাটিই গ্রহণ করুন

খাতা কলম বা ল্যাপটপ- যে পদ্ধতিটি আপনার জন্য ভালো হয় সেটাই ব্যবহার করুন; Source: NPR

নানাভাবেই নোট নেওয়া সম্ভব। সেটা হাতে লিখেও হতে পারে, আবার ল্যাপটপে টাইপ করেও হতে পারে। অনেকে ভাবেন যে, হাতে লিখে নোট নেওয়া তুলনামূলকভাবে ভালো। কারণ, এতে করে পরীক্ষার সময় লিখতে পারার ক্ষমতা এবং দ্রুততা বেড়ে যায়। মূলত, আপনি যে মাধ্যমে লিখে বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন সেটাই ব্যবহার করুন। কারণ, দিনশেষে আপনাকে পুরোটা লেকচার নোট করতে হবে। আর যদি ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকেন তাহলে গুগল ডক ব্যবহার করুন। এতে করে যেকোনো স্থান থেকে কোনো ফাইল না হারিয়েই পাবেন আপনি।

কথা নয়, লেখনীতে মনোযোগ দিন

লেকচারের চুম্বকাংশ নোট করুন; Source: edudemic.com

শিক্ষক একসাথে অনেক কথা হয়তো বলবেন। তার সবগুলো লেখা কি প্রয়োজন? না! তাহলে কোন কোন বিষয় লিখবেন এটাই ভাবছেন তো? এতা তো অবশ্যই মানবেন যে, লেখার চাইতে বলা সহজ। তাই একসাথে অনেক কথা এবং অনেক কঠিন শব্দ ব্যবহার করে কথা বলা সম্ভব। নোট নেওয়ার সময় আপনি আপনার বোঝার মতো করে পুরো বিষয়টিকে সংক্ষেপে ব্যক্ত করুন। শিক্ষকের কথা লাইনের পর লাইন তুলে নেওয়ার কোনো দরকার নেই। নানারকম চিহ্ন ব্যবহার করুন, কিছু শব্দ চুম্বকাংশ হিসেবে বাছাই করুন। দেখবেন, লেখার ব্যাপারটি আপনার জন্য অনেক বেশি সহজ হয়ে গিয়েছে।

২৪ ঘন্টার মধ্যেই নোট পড়ুন

বাসায় গিয়ে অবশ্যই নোটগুলো একবার পড়ুন; Source: NoteShel

আর নোট করার সবচাইতে মজার ব্যাপারটি এখানেই। আপনি যত ভালো করেই লিখে নিন না কেন কোনো নোট, সেটা কিছু সময় বাদে ভুলে যাবেন। এক্ষেত্রে মনে রাখার সবচাইতে সেরা উপায়টি হচ্ছে নোট নেওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে, কিংবা যতটা দ্রুত সম্ভব সেটাকে পড়ে ফেলা। এতে করে আপনি নোটে কী বলা হয়েছে সেটাও বুঝতে পারবেন। সেই সাথে, শিক্ষক যে কথাগুলো বলেছিলেন, যেগুলোর চুম্বকাংশ আপনি ব্যবহার করেছেন নোটে, সেগুলোর বিস্তারিত ভাবটাও নোটের পাশে লিখে নিতে পারবেন।

তাই, আর অপেক্ষা কীসের? কালকের ক্লাসে নোট তোলার সময় ব্যবহার করুন এই কৌশলগুলো আর  অন্যদের চাইতে আরো বেশি চমৎকারভাবে তুলে নিন।

Comments