১৭ জনের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করল নিবন্ধন অধিদপ্তর

আবেদনের শেষ সময়: ১৫ জুলাই, ২০১৯

প্রতিষ্ঠান

নিবন্ধন অধিদপ্তর

পদ-পদসংখ্যা-বেতন

  • অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর – ০৩ জন – ৯,৩০০/- থেকে ২২,৪৯০/- টাকা
  • অফিস সহায়ক – ০৯ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা
  • নৈশ প্রহরী – ০৫ জন – ৮,২৫০/- থেকে ২০,০১০/- টাকা

আবেদনের শেষ সময় 

১৫ জুলাই, ২০১৯ অফিস চলাকালীন সময়ের মধ্যে

আবেদনের নিয়মসহ বিস্তারিত জানতে নিচের বিজ্ঞপ্তিটি দেখুন
সব সময় চাকরির খবরের আপডেট পেতে ক্লিক করুন এখানে।
ওয়াইএসআই বাংলা জবসে আজই আপলোড করুন আপনার সিভি। রেজিস্ট্রেশনের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

নিবন্ধন অধিদপ্তর

নিবন্ধন অধিদপ্তর গণপ্রজাতিন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারে একটি পূর্ণাঙ্গ অধিদপ্তর। নাগরিক সুবিধা বাড়াতে নিবন্ধন পরিদপ্তরকে ২০১৮ সালের ২ জানুয়ারি অধিদপ্তরে উন্নীত করা হয়। জনসাধারণকে সেবা প্রদানের পাশাপাশি সরকার এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমূহের পক্ষে রাজস্ব ও কর আহরণ করা এ অধিদপ্তরের কাজ। নিবন্ধন বিভাগের যাত্রা শুরু হয়েছিল ১৭৮১ সালে। ১৭৯৩ সালে বেঙ্গল রেগুলেশনের মাধ্যমে ঢাকায় প্রথম রেজিস্ট্রি অফিস স্থাপন করা হয়। এরপর ১৯০৮ সালে উপমহাদেশের রেজিস্ট্রেশনের জন্য পূর্ণাঙ্গ আইন প্রণীত হয়। নিবন্ধন বিভাগ ভারতীয় উপমহাদেশের প্রাচীনতম একটি প্রতিষ্ঠান। এ বিভাগ জনসাধারণকে প্রত্যক্ষভাবে সেবা প্রদান করে থাকে। এ লক্ষ্যে নিবন্ধন আইন ও বিধিমালা প্রবর্তিত হয়।

১৭৮১ সালে বেঙ্গল স্ট্যাটিউট-এর অধীনে নিবন্ধন কার্যক্রম শুরু হয়। এরপর ১৭৯৩ সালে ৩৬ নং বেঙ্গল রেগুলেশনের মাধ্যমে সর্বপ্রথম ঢাকায় নিবন্ধন অফিস স্থাপন করা হয়। পরে ১৯০৮ সালে উপমহাদেশের পূর্নাঙ্গ রেজিস্ট্রেশন আইনের প্রবর্তন। করা হয়। বাংলাদেশে বর্তমানে দলিল নিবন্ধন ও সম্পাদনের সংখ্যা ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। জনসাধারণকে সেবা প্রদানের পাশাপাশি নিবন্ধন বিভাগ সরকার এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমূহের পক্ষে রাজস্ব ও কর আহরণ করে থাকে। জনসাধারণকে নূন্যতম সময়ের মধ্যে উন্নতকর সেবা প্রদানের অঙ্গিকার বাস্তবায়নের জন্য নিবন্ধন বিভাগের কাজে গতিশীলতা আনয়ন এবং জনসাধারণকে দ্রুততম সমসয়ের মধ্যে উন্ননতকর সেবা প্রদান নিশিত করা এই বিভাগের মূল উদ্দেশ্য। সরকারের রুপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন প্রথা বাস্তবায়নের নিমিত্ত জনগণকে নুন্যতম সময়ের মধ্যে উন্নত সেবা প্রদানের অঙ্গীকার বাস্তবায়নের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন বিভাগের কার্যক্রমে অধিকতর গতিশীলতা আনায়ন করা।

রেজিস্ট্রেশন বিভাগ এ উপমহাদেশের প্রাচীনতম একটি প্রতিষ্ঠান এবং এর কেএআরআরজেডওকেআরওএম মূলত পরিচালিত হয় মাটি ও মানুষকে ঘিরে । ফলে, দেশের আপামর জনগণের সাথে এ বিভাগ সম্পৃক্ত । এ বিভাগ জনসাধারণকে প্রত্যক্ষভাবে সেবা প্রদান করে থাকে। বাংলাদেশে বর্তমানে দলিল নিবন্ধন ও সম্পাদনের সংখ্যা বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হচ্ছে । জনসাধারণকে সেবা প্রদানের পাশাপাশি রেজিস্ট্রেশন বিভাগ সরকার এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান সমূহের পক্ষে রাজস্ব ও করাদি আহরণ করে থাকে । সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার মাধ্যমে জনসাধারণকে নূন্যতম সময়ের মধ্যে উন্নতকর সেবা প্রদানের অঙ্গিকার বাস্তবায়নের জন্য রেজিস্ট্রেশন বিভাগের কাজে গতিশীলতা আনায়ন এবং জনসাধারণকে দ্রুততম সমস্যে উন্ননতকর সেবা প্রদান নিশিত করা এই বিভাগের মূল উদ্দেশ্য। সরকারের রুপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন প্রথা বাস্তবায়নের নিমিত্ত জনগণকে নুন্যতম সময়ের মধ্যে উন্নত সেবা প্রদানের অঙ্গীকার বাস্তবায়নের মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন বিভাগের কার্যক্রমে অধিকতর গতিশীলতা আনায়ন করা।

সুত্রঃ উইকিপিডিয়া।

Comments

Comments are closed.