অ্যাকাউন্টস অফিসার ও অ্যাকাউন্টেন্ট নিয়োগ দিচ্ছে ঢাকা ওয়াসা

আবেদনের শেষ সময়: ১০ জানুয়ারি, ২০১৯

প্রতিষ্ঠান

ঢাকা ওয়াসা (ঢাকা পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিস্কাশন কর্তৃপক্ষ)

পদ-পদসংখ্যা- সর্বসাকুল্যে বেতন

  • একাউন্স অফিসার – ০১ জন – ৩৫,১০০/- টাকা
  • একাউন্টেন্ট – ০১ জন – ২৩,৯৫০/- টাকা

আবেদনের শেষ সময় 

১০ জানুয়ারি, ২০১৯ তারিখ বিকাল ০৫:০০ টার মধ্যে।

আবেদনের নিয়মসহ বিস্তারিত জানতে নিচের বিজ্ঞপ্তিটি দেখুন
সব সময় চাকরির খবরের আপডেট পেতে ক্লিক করুন এখানে।
ওয়াইএসআই বাংলা জবসে আজই আপলোড করুন আপনার সিভি। রেজিস্ট্রেশনের জন্য ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

ঢাকা পানি সরবরাহ ও পয়ঃনিষ্কাশন কর্তৃপক্ষ

ঢাকা ওয়াসা ঢাকার পানি সরবারহ এবং নর্দমা ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত একটি আধা স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা। সেবামূলক ও বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে ১৯৬৩ সালে ঢাকা শহরের পানি সরবরাহ ও পয়:নিষ্কাশনের জন্য একটি আলাদা সংস্থা হিসেবে ঢাকা ওয়াসা প্রতিষ্ঠিত হয়। ১৯৯০ সালের ১ জুলাই থেকে নারায়ণগঞ্জ শহর এলাকায় পানি সরবরাহ ও পয়:নিষ্কাশনের দায়িত্বও ঢাকা ওয়াসার নিকট ন্যাস্ত করা হয়।

ঢাকা ওয়াসার পরিচালন,রক্ষণাবেক্ষণ এবং গ্রাহক সেবার সুবিধার্থে ঢাকা ওয়াসার সমগ্র সেবা এলাকা ১১টি ভৌগোলিক অঞ্চলে বিভক্ত। এর মধ্যে ১০টি অঞ্চল ঢাকা মহানগরীতে এবং ১টি অঞ্চল নারায়ণগঞ্জে অবস্থিত। প্রতিটি জোনাল অফিসের মাধ্যমে কারিগরী পরিচালন ও রক্ষণাবেক্ষণ এবং রাজস্ব বিলিং আদায় সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যাবলী পরিচালিত হয়।

ঢাকার শহরবাসীকে পানি সরবরাহ ও সেওয়াজ নিষ্পত্তি আদেশসহ ১৯৬৩ সালে ঢাকা পানি সরবরাহ ও সেয়ারেজ অথরিটি (ডিডাব্লাসএএসএ) প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। ১৯৯০ সালে, নারায়ণগঞ্জ শহরের পানি সরবরাহ সেবাও ডাবাসার কার্যালয়ের অধীনে আসে। এই কার্যক্রমগুলি ‘ওয়াসা অ্যাক্ট, ১৯৯৬’ দ্বারা পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে এবং এই আইনের অনুসারে, ডাব্লুএসএএসএ এখন পরিচালনা ও অপারেশনে কর্পোরেট সংস্কৃতির সাথে একটি স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা হিসাবে কাজ করছে। এশিয়া-পরিবেশ বান্ধব জনসাধারণের মধ্যে সর্বপ্রকার সেরা পানি ব্যবহারের জন্য , স্থায়ী এবং প্রো মানুষ জল ব্যবস্থাপনা সিস্টেম। ক্রমাগত ভাল আমাদের গ্রাহকদের পরিবেশন করার উপায় চাইতে, কার্যকরভাবে এবং দ্রুতগামী প্রকল্প বাস্তবায়ন, GW থেকে SW থেকে নির্ভরতা হ্রাস করুন, ব্যবস্থাপনা ও অপারেশন একটি কর্পোরেট সংস্কৃতি অনুশীলন, উচ্চ স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করুন, দক্ষতা উন্নত এবং অপারেটিং খরচ কমাতে।

ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী এবং ২০ মিলিয়ন জনসংখ্যার একটি শহর। যেখানে এর বাসিন্দারা বন্যা, সেবার স্বল্প গুণমান, নর্দমা নিষ্কাশন, দূষণযোগ্য নদীভাণ্ডার, অপরিকল্পিত শহুরে উন্নয়ন এবং বিভিন্ন দুর্ভোগের সম্মুখীন হয়। তাছাড়া এর জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশেরও বেশি মানুষ বস্তিতে বসবাস করে। ঢাকার পানি ও নিষ্কাশনের দায়িত্বে থাকা ঢাকা ওয়াসা বেশ কয়েকটি পদক্ষেপের সাথে এই দূর্যোগের মোকাবিলা করেছে। ২০১১ সাল থেকে এটি প্রতিবছর সপ্তাহে ৭ দিন ২৪ ঘন্টা প্রতিনিয়ত পানি সরবরাহ করে, এবং আয় বৃদ্ধি করে পরিচালন খরচ আরো কমিয়ে আনে, এতে পানি অপচয় ২০০৩ সালে ৫৩% থেকে ২০১০ সালে ২৯% হারে হ্রাস পায়। এই অর্জনের জন্য ঢাকা ওয়াসা বার্লিনে গ্লোবাল ওয়াটার সামিট ২০১১ এ “বছরের সেরা পারফরমার” অর্জন করেছে। ভবিষ্যতে ঢাকা ওয়াসা নগর থেকে ১৬০ কিলোমিটার দূরে কম দূষিত নদী থেকে শোধিত পানির সঙ্গে স্থল ভূগর্ভস্থ পানি প্রতিস্থাপনের জন্য বিশাল বিনিয়োগের পরিকল্পন করে| ২০১১ সালে বাংলাদেরেশ রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ রাজউক, নতুন বাড়িতে পানি ঘাটতি এবং বন্যা হ্রাসের জন্য বৃষ্টির পানি সংগ্রহের ব্যবস্থা করেন।

সূত্রঃ উইকিপিডিয়া।

Comments
Comments

Comments are closed.