কাজে মন বসছে না? এই কৌশলগুলো আপনার কাজে লাগবেই!

কাজে সবসময় আপনার মন বসবে- এমনটা হওয়া সম্ভব নয়। কারণে কিংবা অকারণে মনোযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়াটাই স্বাভাবিক। তবে কিছু ক্ষেত্রে কাজে মনোযোগ দেওয়াটা জরুরি হয়ে পড়ে। এছাড়া, বারবার এবং অনেক বেশি সময় ধরে কোনো কাজে মন না বসলে সেটা চিন্তার কারণও হয়ে দাঁড়ায়। আপনিও কি এমন কোনো সমস্যায় ভুগছেন? চলুন, জেনে নিই চারপাশের ঘটনাগুলোর দ্বারা প্রভাবিত না হয়ে কাজে মন বসানোর কিছু সহজ ও কার্যকরী কৌশল।

১) কেন সমস্যা হচ্ছে সেই কারণ খুঁজে বের করুন!

মনোযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারণ সম্পর্কে ভাবুন; Source: Herb

কেন আপনার মন বসছে না কাজে? নিশ্চয়ই চারপাশের কোনো ব্যাপার এক্ষেত্রে আপনাকে বারবার বাঁধা দিচ্ছে। কী সেটা? একটু সময় নিন আর খুব ভালো করে ভেবে দেখুন, কেন আপনার এমন হচ্ছে? পাশের বাড়ির ঠুকঠাক শব্দ, বাড়ির কোনো বাচ্চার চিৎকার, শীতল আবহাওয়া বা অন্য কিছু? কারণ যেটাই হোক, সেটাকে বিদায় করার চেষ্টা করুন। তাহলে মনোযোগ এমনিতেই আসবে।

আর যদি এমন হয় যে, আপনি ইমেইলের নোটিফিকেশন বা বন্ধুর ফোনের কারণে কাজে মন দিতে পারছেন না, তাহলে আগে ইমেইল চেক করে নিন। ফোনে কথা বলে নিন। এরপর একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করুন। এই সময়ের মধ্যে ইমেইল, ফেসবুক, ইন্সটাগ্রাম এবং সবকিছুকে থামিয়ে দিন। নিজেকে বোঝান যে, নির্দিষ্ট এই সময়টুকু পার হলেই আবার স্বাভাবিক কাজগুলোতে ফেরত যাবেন আপনি। দেখবেন, আগের চাইতে ভালো কাজ করতে পারছেন আপনি।

২) ইচ্ছাশক্তিকে ধারালো করে তুলুন

আমাদের মাংসপেশীকে যেমন সুঠাম করে তোলার জন্য পরিচর্যা ও অনুশীলনের দরকার পড়ে, ঠিক তেমনি ইচ্ছাশক্তির ক্ষেত্রেও অনুশীলনের দরকার হয়। কীভাবে করবেন এই অনুশীলন? এই যেমন, নিজেকে প্রতিদিন সকালে উঠতে বাধ্য করুন, ভাজাপোড়া খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। আপনার ইচ্ছে করবে এই কাজগুলোকে নিজের মতো করে করতে। একটু বেশি ঘুমোতে ইচ্ছে করবে, জাংক ফুড খেতে ইচ্ছে হবে। তবে আপনি যদি সেটা না করেন তাহলে একটু একটু করে আপনার ইচ্ছাশক্তি আপনার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে। আর একটা সময় আপনি কতটা ফোকাসড থাকবেন কোনো কাজে সেটাও আপনিই নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।

৩) ধ্যান করুন

মেডিটেশন করুন; Source: Mindful Spring

কখনো কি খেয়াল করেছেন যে, ধ্যান করা বা মেডিটেশন কোনো ব্যাপারে মনোযোগ বাড়াতে বেশ সাহায্য করে? এটি মানুষকে সমস্ত আজেবাজে চিন্তা, উদ্বিগ্নতা- সব কিছু থেকে দূরে যেতে সাহায্য করে। কোনো ব্যাপারে অনেক বেশি চিন্তা হচ্ছে?

যোগব্যায়াম এক্ষেত্রে বেশ কার্যকরী। মূলত, মেডিটেশনের সময় সবাই নিজেদের শ্বাসের দিকে বেশি খেয়াল রাখেন। কতবার এবং কত দ্রুত শ্বাস-প্রশ্বাস নেওয়া হচ্ছে সেটা সম্পর্কে খেয়াল রাখতে গিয়ে বাড়তি কোনো ব্যাপারে চিন্তা করা সম্ভব হয় না। এতে করে মন এবং মস্তিষ্ক একটা সময় ধীরে ধীরে আপনার নিয়ন্ত্রণে আসা শুরু করে। আপনি যদি চান নিজেকে এবং নিজের মস্তিষ্ককে আরো বেশি নিয়ন্ত্রণ করতে তাহলে মেডিটেশন করা হতে পারে আপনার জন্য সেরা উপায়।

৪) একবারে একটি কাজ করুন

সবাই একইসাথে অনেক কাজ করায় দক্ষ হন না। আপনি কি একইসাথে অনেক কাজ করতে পারেন, নাকি না? প্রশ্নটির উত্তর ভালো করে জেনে নিন। অনেক সময় একইসাথে অনেক কাজ করতে গেলে বারবার অন্য কাজের চিন্তা মাথায় ঘুরপাক খায়। তাই আপনি যদি মাল্টিটাস্কিংয়ে অভ্যস্ত না হন, তাহলে একত্রে কয়েকটি কাজ করা বন্ধ করুন। একবারে মাত্র একটি কাজ নিন। কোনো কাজ করতে শুরু করলে সেটা শেষ করে উঠুন। মাথায় রাখুন যেন এই আগের কাজটির প্রভাব আপনার পরের কাজটির উপরে কোনো প্রভাব না রাখে।

একসাথে অনেকগুলো কাজ করা থেকে বিরত থাকুন; Source: The Productive Woman

উপরের যে কৌশলগুলোর কথা বলা হয়েছে, সেগুলো আপাতদৃষ্টিতে সহজ মনে হলেও, বাস্তবে কর্মক্ষেত্রে প্রয়োগ করাটা বেশ কঠিন। তাই শুরুতেই নিজেকে অতিরিক্ত চাপ না দিয়ে ধীরে ধীরে অভ্যাস করুন। দেখবেন, একটা সময় আপনার নিজের মনোযোগ আপনি নিজেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন।

Comments
Comments

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.