সেল্ফ ডেভেলপমেন্টের ৪টি কার্যকরী ওয়েবসাইট

একবিংশের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা প্রস্তুতি

একবিংশ শতাব্দীর এই চরম মুহূর্তে যখন প্রযুক্তির বিস্তৃত ব্যবহার জীবনকে আরামদায়ক করে তুলেছে, ঠিক সেই সময় পরিবর্তনশীল যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলা ক্রমশ চ্যালেঞ্জিং হয়ে উঠছে। বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে সামিল হলেও এই পরিবর্তনের বাইরে নয়।

তাই দেশের তরুণ প্রজন্মকে জীবনযাত্রার উচ্চ মান নিশ্চিত করতে হলে সেল্ফ ডেভেলপমেন্ট (একই সাথে স্কিল ডেভেলপমেন্ট) এর কোনো বিকল্প নেই। স্কুল-কলেজের গতানুগতিক শিক্ষা এই চ্যালেঞ্জিং সময়ের জন্য আমাদের কতটুকু প্রস্তুত করতে পারছে তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ থাকাটা অস্বাভাবিক নয়। তাই দরকার স্ব-শিক্ষা। এখানে কয়েকটি সেল্ফ ডেভেলপমেন্ট বিষয়ক ওয়েবসাইট সম্পর্কে আলোচনা করা হবে, যেগুলো স্কিল ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে আমাদেরকে করে তুলবে যুগোপযোগী মানব সম্পদ হিসেবে।

১. Goodreads

I spend a lot of time reading.

-Bill Gates

স্কিল কিংবা সেল্ফ, যেকোনো ধরনের ডেভেলপমেন্টের জন্য দরকার প্রচুর বই পড়া। আর বর্তমান সময়ে বই পড়ার জন্য সবচেয়ে সুবিধাজনক ওয়েবসাইট হলো Goodreads। ২০০৭ সালে গড়ে ওঠা এই ওয়েবসাইটটির বর্তমান সংগ্রহে রয়েছে প্রায় দুই বিলিয়নের বেশি বই।

মজার ব্যাপার হলো, Goodreads এ পাঠকদের জন্য একটি বড়সড় ফ্রি বুকলিস্ট রয়েছে। অর্থাৎ এই বইগুলো পড়তে পাঠকের কোনো সাবস্ক্রিপশন চার্জ লাগবে না। এছাড়াও এর অন্যান্য সুবিধাগুলোর মধ্যে আছে অন্যরা কী বই পড়ছে তা জানা যাবে, পাঠক নিজে কোন বই কতটুকু পড়েছেন তা চিহ্নিত করে রাখতে পারবেন, প্রায় ৭৫ মিলিয়ন মেম্বার নিয়ে গড়ে ওঠা এই ওয়েবসাইটটিতে বুক রিভিউয়ের ব্যবস্থাও আছে।

তাই একজন পাঠক চাইলে সহজেই তার পছন্দের ক্যাটাগরির বই সম্পর্কে পরামর্শ পেতে পারেন।

২. TED

You can speak well if your tongue can deliver the message of your heart.

  – John Ford

বর্তমান সময়ে একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্কিল হলো Public Speaking। মূলত পাবলিক স্পিকিং প্লাটফর্ম হিসেবে “Ideas worth spreading” মূলনীতিকে সামনে রেখে ১৯৮৪ সালে TED-এর যাত্রা শুরু হয়। এটি একটি অলাভজনক সংস্থা।

এই সংস্থার মূল লক্ষ্য হলো আইডিয়া শেয়ার করা। শুরুর দিকে এটি প্রযুক্তি, বিনোদন ও ডিজাইন বিষয়ক আইডিয়া শেয়ার করতো। বর্তমানে TED প্লাটফর্ম বিজ্ঞান থেকে শুরু করে ব্যবসা এবং বৈশ্বিক বিষয়াবলি নিয়েও আলোচনা করে। TEDTalk রয়েছে প্রায় ১০০টির বেশি ভাষায়। ওয়েবসাইটে কিংবা YouTube এ এই আইডিয়াগুলো পাওয়া যাবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে। এটি শুধু পাবলিক স্পিকিং স্কিলই ডেভেলপ করবে না, একইসাথে আমাদের চিন্তা-ভাবনাকে করবে প্রসারিত।

৩. Coursera

Absorb what is useful, Discard what is not, add what is uniquely your own.

– Bruce Lee

Coursera হলো অনলাইনের এডুকেশনের এমন একটি প্লাটফর্ম যেখানে বিভিন্ন বিষয়ের উপর প্রায় ২,৭০০ এর বেশি অনলাইন কোর্স রয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ২৫০টির বেশি ক্যারিয়ার চেঞ্জিং স্পেশালাইজড সার্টিফিকেশন কোর্স আছে, যেগুলো সঠিকভাবে সম্পন্ন করা গেলে মানসম্পন্ন সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তের যে কেউ তাদের পছন্দের যেকোনো বিষয়ে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রশিক্ষকদের কাছে অনলাইনের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ নিতে পারে। আর এর মাধ্যমে নিজেদেরকে যেকোনো প্রতিযোগিতার জন্য উপযুক্ত করে তুলতে পারে। Coursera এর একটি ‍সুবিধা হলো, কেউ যদি সার্টিফিকেশনের জন্য পেমেন্ট করতে সক্ষম না হয়, তবে সে Financial Aid এর জন্যও এপ্লাই করতে পারবে। সঠিক কারণ দর্শানোর মাধ্যমে সার্টিফিকেশন কোর্সটি বিনামূল্যে করাও সম্ভব। এছাড়া বিভিন্ন ফ্রি কোর্সের ব্যবস্থা তো আছেই।

৪. Udemy

We are what we repeatedly do. Excellence, then, is not an act but a habit.

– Will Durant

 

স্কিল ডেভেলপমেন্টের মাধ্যমে সেল্ফ ডেভেলপমেন্টের জন্য আরেকটি বিখ্যাত ওয়েবসাইট হলো Udemy। দক্ষ প্রশিক্ষকদের মাধ্যমে প্রায় আশি হাজারের বেশি সংখ্যক অনলাইন কোর্স করার সুযোগ রয়েছে Udemy-তে। ওয়েব ডেভেলপমেন্ট কিংবা গ্রাফিক্স ডিজাইনিং, ফটোগ্রাফি অথবা সোশ্যালাইজেশন, নতুন ভাষা শিক্ষা, মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট কিংবা UI/UX ডিজাইনিং- যেকোনো বিষয়েই সার্টিফাইড হওয়া সম্ভব Udemy এর মাধ্যমে।

এর বেশ কিছু ফ্রি কোর্স রয়েছে। তবে সার্টিফিকেশন সুবিধাযুক্ত বেশিরভাগ কোর্সই পেইড কোর্স। কেউ যদি সার্টিফিকেট নিতে আগ্রহী না হয়, তবে তারা অন্যান্য কিছু ওয়েবসাইট থেকে Udemy এর নির্দিষ্ট কিছু কোর্স বিনামূল্যে ডাউনলোড করে নিতে পারবে।

Comments
Comments

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.